যশোর টু খুলনা ট্রেনের সময়সূচী ২০২৪

যশোর ও খুলনা বাংলাদেশের দুটি গুরুত্বপূর্ণ শহর। তারা দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে অবস্থিত এবং একটি ট্রেন পরিষেবা দ্বারা সংযুক্ত। এই নিবন্ধে, আমরা যশোর থেকে খুলনা ট্রেনের সময়সূচী এবং অন্যান্য প্রাসঙ্গিক তথ্য নিয়ে আলোচনা করব।

WhatsApp Group Join Now
Telegram Group Join Now
Instagram Group Join Now
যশোর টু খুলনা ট্রেনের সময়সূচী
যশোর টু খুলনা ট্রেনের সময়সূচী

যশোর টু খুলনা ট্রেনের সময়সূচী

ট্রেনের নামপ্রস্থানআগমনছুটির দিন
কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস (716)18:4620:10শনিবার
সুন্দরবন এক্সপ্রেস (726)16:2017:40বুধবার
রূপসা এক্সপ্রেস (728)17:1718:30বৃহস্পতিবার
সিমন্ত এক্সপ্রেস (748)02:5104:10সোমবার
সাগরদাড়ি এক্সপ্রেস (762)10:4812:10সোমবার
চিত্রা এক্সপ্রেস (764)02:2003:40সোমবার
যশোর টু খুলনা ট্রেনের সময়সূচী
ট্রেনের নামপ্রস্থানআগমনছুটির দিন
মোহনন্দ এক্সপ্রেস (16)14:4016:40না
রকেট এক্সপ্রেস (24)22:2523:45না
নকশিকাঁথা এক্সপ্রেস (26)20:0022:00না
বেনাপোল কমিউটার (54)16:4418:10না
খুলনা যাত্রী (98)10:0411:40না
যশোর টু খুলনা ট্রেনের সময়সূচী

যশোর টু খুলনা ট্রেনের ভাড়া

সিট ক্লাসটিকিটের মূল্য (15% ভ্যাট)
শেভন60 টাকা
শেভন চেয়ার70 টাকা
প্রথম আসন90 টাকা
স্নিগ্ধা115 টাকা
এসি135 টাকা
যশোর টু খুলনা ট্রেনের ভাড়া

যশোর হল একটি জেলা এবং দক্ষিণ-পশ্চিম বাংলাদেশের একটি শহর, যা ভারতের সীমান্তের কাছে অবস্থিত। শহরটি এই অঞ্চলে ব্যবসা-বাণিজ্যের একটি গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্র এবং এটি একটি প্রধান পরিবহন কেন্দ্রও। অন্যদিকে, খুলনা বাংলাদেশের তৃতীয় বৃহত্তম শহর এবং এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ শিল্প ও বাণিজ্যিক কেন্দ্র। এটি বিশ্বের বৃহত্তম ম্যানগ্রোভ বন সুন্দরবনের প্রবেশদ্বারও।

যশোর ও খুলনার মধ্যে ট্রেন সার্ভিস বাংলাদেশ রেলওয়ে দ্বারা পরিচালিত হয়। দুই শহরের মধ্যে দূরত্ব আনুমানিক 60 কিলোমিটার, এবং ট্রেন ভ্রমণে প্রায় 1 ঘন্টা 30 মিনিট সময় লাগে। ট্রেন পরিষেবা স্থানীয় এবং পর্যটক উভয়ের জন্যই একটি জনপ্রিয় পরিবহণের মাধ্যম, কারণ এটি সাশ্রয়ী, আরামদায়ক এবং গ্রামাঞ্চলের প্রাকৃতিক দৃশ্য দেখায়।

যশোর ও খুলনার মধ্যে বেশ কয়েকটি ট্রেন চলাচল করে। সবচেয়ে জনপ্রিয় ট্রেন হল চিত্রা এক্সপ্রেস, যা প্রতিদিন ঢাকা ও খুলনার মধ্যে চলাচল করে এবং পথে যশোরে থামে। ট্রেনটি যশোর থেকে ভোর ৫টা ৪০ মিনিটে ছেড়ে যায় এবং সকাল ৭টা ১৫ মিনিটে খুলনায় পৌঁছায়। চিত্রা এক্সপ্রেস একটি শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ট্রেন এবং আরামদায়ক বসার ব্যবস্থা রয়েছে। এটিতে একটি ডাইনিং কারও রয়েছে যেখানে যাত্রীরা খাবার এবং পানীয় ক্রয় করতে পারে।

আরেকটি জনপ্রিয় ট্রেন হল সাগরদাঁড়ি এক্সপ্রেস, যেটি প্রতিদিন ঢাকা ও খুলনার মধ্যে চলাচল করে এবং পথে যশোরে থামে। ট্রেনটি যশোর থেকে দুপুর ২টা ২০ মিনিটে ছেড়ে যায় এবং খুলনায় পৌঁছায় বিকেল ৪টা ৫ মিনিটে। সাগরদাড়ি এক্সপ্রেস একটি শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ট্রেন এবং আরামদায়ক বসার ব্যবস্থা করে। এটিতে একটি ডাইনিং কারও রয়েছে যেখানে যাত্রীরা খাবার এবং পানীয় ক্রয় করতে পারে।

চিত্রা এক্সপ্রেস এবং সাগরদাঁড়ি এক্সপ্রেস ছাড়াও যশোর ও খুলনার মধ্যে চলাচলকারী অন্যান্য ট্রেন রয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে রূপসা এক্সপ্রেস, সুন্দরবন এক্সপ্রেস এবং রকেট এক্সপ্রেস। ট্রেনের সময়সূচী এবং সময় ঋতুর উপর নির্ভর করে পরিবর্তিত হতে পারে, তাই সর্বশেষ তথ্যের জন্য বাংলাদেশ রেলওয়ে ওয়েবসাইট বা স্থানীয় ট্রেন স্টেশনে অনুসন্ধান করার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।

যশোর এবং খুলনার মধ্যে ট্রেন পরিষেবা সাশ্রয়ী, ভ্রমণের শ্রেণির উপর নির্ভর করে 50 টাকা থেকে 400 টাকা পর্যন্ত টিকিটের মূল্য। শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ট্রেনগুলি আরও ভাল আরাম এবং সুবিধা প্রদান করে, তবে তারা শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত নয় এমন ট্রেনের চেয়ে বেশি ব্যয়বহুল।

উপসংহারে, যশোর এবং খুলনার মধ্যে ট্রেন পরিষেবা স্থানীয় এবং পর্যটক উভয়ের জন্য একটি সুবিধাজনক এবং সাশ্রয়ী মূল্যের পরিবহন ব্যবস্থা। চিত্রা এক্সপ্রেস এবং সাগরদাড়ি এক্সপ্রেস হল সবচেয়ে জনপ্রিয় ট্রেন যা দুটি শহরের মধ্যে চলাচল করে, তবে অন্যান্য বিকল্পগুলিও উপলব্ধ রয়েছে। যাত্রীরা তাদের বাজেট এবং আরাম পছন্দের উপর নির্ভর করে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত এবং অ-বাতান নিয়ন্ত্রিত ট্রেনগুলির মধ্যে একটি বেছে নিতে পারেন। কোনও অসুবিধা এড়াতে ভ্রমণের আগে ট্রেনের সময়সূচী এবং সময় পরীক্ষা করার পরামর্শ দেওয়া হয়।

অবশ্যই, এখানে বাংলাদেশের যশোর এবং খুলনার মধ্যে ট্রেন পরিষেবা সম্পর্কিত কিছু প্রায়শই জিজ্ঞাসিত প্রশ্ন (FAQ) এবং উত্তর রয়েছে:

প্রশ্নঃ খুলনা থেকে ট্রেনে যশোর কত দূর?

উত্তর: ট্রেনে যশোর এবং খুলনার মধ্যে দূরত্ব প্রায় 60 কিলোমিটার, এবং ট্রেন যাত্রায় প্রায় 1 ঘন্টা 30 মিনিট সময় লাগে।

প্রশ্ন: যশোর ও খুলনার মধ্যে চলাচলকারী জনপ্রিয় ট্রেনগুলো কী কী?

উত্তর: যশোর ও খুলনার মধ্যে চলাচলকারী জনপ্রিয় ট্রেনগুলি হল চিত্রা এক্সপ্রেস, সাগরদাঁড়ি এক্সপ্রেস, রূপসা এক্সপ্রেস, সুন্দরবন এক্সপ্রেস এবং রকেট এক্সপ্রেস।

প্রশ্নঃ যশোর থেকে খুলনা পর্যন্ত ট্রেনের ভাড়া কত?

উত্তর: যশোর থেকে খুলনা পর্যন্ত ট্রেনের ভাড়া ভ্রমণের শ্রেণির উপর নির্ভর করে। টিকিটের দাম 50 টাকা থেকে 400 টাকা পর্যন্ত, শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ট্রেনগুলি অ-বাতানুকূল ট্রেনের চেয়ে বেশি ব্যয়বহুল।

প্রশ্নঃ ট্রেনে কি কি সুবিধা পাওয়া যায়?

উত্তর: ট্রেনে উপলব্ধ সুবিধাগুলি ভ্রমণের শ্রেণির উপর নির্ভর করে। শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ট্রেনগুলি আরও ভাল আরাম এবং সুবিধা প্রদান করে যেমন আরামদায়ক বসার ব্যবস্থা এবং ডাইনিং কার যেখানে যাত্রীরা খাবার এবং পানীয় ক্রয় করতে পারে। শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত নয় এমন ট্রেনগুলিতেও বসার ব্যবস্থা রয়েছে, তবে তারা শীতাতপ নিয়ন্ত্রিতগুলির মতো আরামদায়ক নাও হতে পারে।

প্রশ্নঃ আমি কিভাবে যশোর থেকে খুলনা ট্রেনের টিকিট বুক করতে পারি?

উত্তর: ট্রেনের টিকিট স্থানীয় ট্রেন স্টেশনে বা বাংলাদেশ রেলওয়ে ওয়েবসাইটের মাধ্যমে বুক করা যেতে পারে। কোনো অসুবিধা এড়াতে, বিশেষ করে পিক ট্র্যাভেল সিজনে আগে থেকেই টিকিট বুক করার পরামর্শ দেওয়া হয়।

প্রশ্ন: যশোর ও খুলনার মধ্যে ট্রেনের সময়সূচী কী?

উত্তর: যশোর এবং খুলনার মধ্যে ট্রেনের সময়সূচী মৌসুমের উপর নির্ভর করে পরিবর্তিত হতে পারে। চিত্রা এক্সপ্রেস যশোর থেকে সকাল 5:40 টায় ছেড়ে যায় এবং খুলনায় পৌঁছায় 7:15 টায় এবং সাগরদাঁড়ি এক্সপ্রেস যশোর থেকে 2:20 টায় ছেড়ে যায় এবং 4:05 টায় খুলনায় পৌঁছায়। সর্বশেষ তথ্যের জন্য বাংলাদেশ রেলওয়ে ওয়েবসাইট চেক করা বা স্থানীয় ট্রেন স্টেশনে অনুসন্ধান করার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।

প্রশ্নঃ যশোর ও খুলনার মধ্যে ট্রেন সার্ভিস কি নির্ভরযোগ্য?

উত্তর: যশোর এবং খুলনার মধ্যে ট্রেন পরিষেবা সাধারণত নির্ভরযোগ্য, কিন্তু আবহাওয়া পরিস্থিতি, ট্র্যাক রক্ষণাবেক্ষণ বা অন্যান্য অপ্রত্যাশিত পরিস্থিতির মতো বিভিন্ন কারণে বিলম্ব ঘটতে পারে। সেই অনুযায়ী আপনার ভ্রমণের পরিকল্পনা করা এবং কোনো বিলম্বের ক্ষেত্রে কিছু বাফার সময় রাখার পরামর্শ দেওয়া হয়।

বাংলাদেশের যশোর এবং খুলনার মধ্যে ট্রেন পরিষেবা সম্পর্কিত প্রায়শই জিজ্ঞাসিত প্রশ্ন ও উত্তরগুলির মধ্যে কয়েকটি। আপনার যদি অন্য কোন প্রশ্ন থাকে, অনুগ্রহ করে নির্দ্বিধায় জিজ্ঞাসা করুন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top